হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের পক্ষ হতে সবাইকে শুভেচছা। ”করোনা” প্রতিরোধে ধর্মসভা বা ধর্মীয় জনসমাগম না করতে অনুরোধ করা হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টে অনুদান প্রদানের জন্য দানশীল সকলের নিকট আহ্বান জানিয়েছেন। হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের তিন বছর মেয়াদী নতুন ট্রাস্টিবোর্ড ১৪/০১/২০২০ তারিখে গঠন করা হয়েছে।   ট্রাস্টের সকল তথ্য জানতে ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেইজ দেখুন্ সরকারি ব্যবস্থাপনায় দেশে/বিদেশে তীর্থ  করতে ওয়েবসাইট হতে ফরম ডাউনলোড করে আবেদন করুন  ট্রাস্ট হতে অনুদান গ্রহণে কোন অর্থ/ফি দিতে হয় না    সরকারের রাজস্ব বাজেটের আওতায় ২২৮.৬৯ কোটি টাকায় সমগ্র দেশে সনাতন ধর্মালম্বীদের জন্য ১৮১২ টি মন্দির সংস্কার কার্যক্রম চলছে।  ৯.৯২৪৫ কোটি টাকায় চট্টগ্রামসহ ৪টি জেলায় ১৪০টি; ৩.৫৮৬২ কোটি টাকায় হবিগঞ্জ জেলার ৪৮টি মন্দির ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সংস্কার ৩১.১২.২০১৯ সমাপ্ত হয়েছে। রাজস্ব বাজেটে ৯.৭৫৬৫ কোটি টাকায় শ্রীশ্রী ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির ও শ্রীশ্রী সিদ্ধেশ্বরী কালী মন্দির  উন্নয়ন ও সংস্কার প্রকল্পগুলো বর্তমানে  হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।    দুঃস্থ হিন্দু ও মন্দিরে সহায়তা গ্রহণ, মন্দিরের নাম নিবন্ধন এবং দেবোত্তর সম্পত্তি তালিকাভুক্ত করতে নির্ধারিত ফরম www.hindutrust.gov.bd ওয়েব সাইট হতে ডাউনলোড ও প্রিন্ট করে প্রয়োজনীয় তথ্য সহ আবেদন করুন 

মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৬ August ২০১৭

লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

ট্রাস্টের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য:

ট্রাস্টের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হইবে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের কল্যাণসহ  সার্বিক কল্যাণ সাধন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিপূর্ণ সহাবস্থান এবং শান্তিপূর্ণ সমাজ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সমন্বিতভাবে কার্য পরিচালনা।

 

ট্রাস্টের কার্যাবলী:

(ক) হিন্দু ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, উপাসনালয় এবং শ্মশান প্রতিষ্ঠা, সংস্কার, সংরক্ষণ , উন্নয়ন রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালনায় আর্থিক ও অন্যান্য সহায়তা প্রদান;

(খ) হিন্দু ধর্মীয় উপাসনালয়ের পবিত্রতা রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ;

(গ) হিন্দু ধর্মীয় অনুসারীদের দেশে-বিদেশে তীর্থভ্রমণে সহায়তা প্রদান;

(ঘ) হিন্দু ধর্মীয় উৎসব পালনে সহায়তা প্রদান;

(ঙ) দুঃস্থ হিন্দুদের আর্থিক সহায়তা প্রদান;

(চ) ট্রাস্টের সর্বক্ষেত্রে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির যথাযথ প্রয়োগ ও ব্যবহার নিশ্চিতকরণ;

(ছ) ধর্মীয় শাস্ত্র ও সংস্কৃত ভাষা বিষয়ে পুরোহিত ও সেবাইতগণের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ;

(জ) হিন্দু ধর্মীয় বিষয়ে শিক্ষা ও গবেষণার জন্য অনুদান , পুরস্কার, পদক ও বৃত্তি প্রদান;

(ঝ) প্রাচীন তীর্থস্থান ও পীঠস্থান চিহ্নিতকরণ এবং উহাদের সংরক্ষণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সহায়তা প্রদান;

(ঞ) হিন্দু ধর্মীয় প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষাকেন্দ্র বা অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপন ও উহাদের উন্নয়নে সহযোগিতা প্রদান;

(ট) দেবোত্তর সম্পত্তি উদ্ধার ও সংরক্ষণ;

(ঠ)  হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সামাজিক , সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে ধর্মীয় মূল্যবোধ,বিশ্বভ্রাতৃত্ববোধ, মানবতাবোধ, সহিষ্ণুতা , সহমর্মিতা ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার কাজে সহযোগিতা প্রদান;

(ড) হিন্দু ধর্মীয় গ্রন্থাবলি প্রণয়ন, অনুবাদ এবং সাময়িকী বা প্রচারপত্র প্রকাশকরণ;

(ঢ) হিন্দু ধর্মীয় ইতিহাস, আদর্শ, সাহিত্য, দর্শন, সংস্কৃতি , আইন, ন্যায়বিচার সংক্রান্ত বিষয়ে গবেষণা পরিচালনা এবং এতদুদ্দেশ্যে সম্মেলন, সিম্পোজিয়াম, কর্মশালা, সেমিনার, প্রদর্শনীসহ অন্যান্য অনুষ্ঠানাদি আয়োজন;

(ণ) হিন্দু ধর্ম সংক্রান্ত সমৃদ্ধ লাইব্রেরি ও ডিজিটাল অথ্যভাণ্ডার স্থাপন;


Share with :

Facebook Facebook