হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের অনুদান গ্রহণে কোন অর্থ দিতে হয় না  সরকার কর্তৃক ২২৮.৬৯ কোটি টাকায়  অনুমোদিত “সমগ্র দেশে সনাতন ধর্মালম্বীদের জন্য ১৮১২ টি মন্দির ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও সংস্কার প্রকল্প”টি  হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।দুঃস্থ হিন্দু ও মন্দিরে সহায়তা গ্রহণ, মন্দিরের নাম নিবন্ধন এবং দেবোত্তর সম্পত্তি তালিকাভুক্ত করতে নির্ধারিত ফরম www.hindutrust.gov.bd ওয়েব সাইট হতে ডাউনলোড ও প্রিন্ট করে প্রয়োজনীয় তথ্য সহ আবেদন করুন 

মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১st জুন ২০১৯

ট্রাস্টি বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া

২০১৮ সনের ৪২ নং আইন অনুযায়ী

ধারাঃ৫। -(১) নিম্নবর্ণিত সদস্যগণের সমম্বয়ে ট্রাস্টি বোর্ড গঠিত হইবে, যথা:-

        (ক) ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত মন্ত্রী,  যিনি উহার চেয়ারম্যানও হইবেন।

        (খ) জাতীয় সংসদের স্পীকার কর্তক মনোনীত ২ জন সংসদ-সদস্য, যাহারা সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যানও হইবেন।

        (গ) সচিব, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়; এবং

        (ঘ) হিন্দু ধর্মালম্বী বিশিস্ট ব্যক্তিগণের মধ্য হইতে, প্রত্যেক বিভাগের অন্যুন ২ জন করিয়া, সরকার কর্তৃক মনোনীত ২১ জন ট্রাস্টি।

(২) সচিব, ট্রাস্টি বোর্ডের সাচিবিক দায়িত্ব পালন করিবেন।

(৩) সরকার উপ-ধারা (১) এর দফা (ঘ) এর অধীন মনোনীত ট্রাস্টিগণের মধ্য হইতে ১ জনকে ভাইস-চেয়ারম্যান হিসাবে মনোনীত করিবে।

(৪) উপ-ধারা (১) এর দফা (ঘ) এর অধীন মনোনীত ট্রাস্টিগণ মনোনীত ট্রাস্টিগণ তাহাদের মনোনয়নের তারিখ হইতে ৩ বৎসর মেয়াদে ট্রাস্টি হিসাবে বহাল থাকিবেন।

তবে শর্ত থাকে যে, উক্ত মেয়াদ শেষ হইবার পূর্বে সরকার কোনো মনোনীত ট্রাস্টিকে কোনরূপ কারণ দর্শানো ব্যতিরেকে তাহার দায়িত্ব হইতে অব্যাহতি প্রদান করিতে পারিবে।

(৫) উপ-ধারা (১) এর দফা (ঘ) এর অধীন মনোনীত কোনো ট্রাস্টি যে কোনো সময় চেয়ারম্যানের উদ্দেশ্যে স্বাক্ষরযুক্ত পত্রযোগে ট্রাস্টির দায়িত্ব পরিত্যাগ করিতে পারিবেন।

(৬) ট্রাস্টি পদে কেবল শূন্যতা বা ট্রাস্টি বোর্ড গঠনে ত্রুটি থাকিবার কারণে ট্রাস্টি বোর্ডের কোনো কার্য বা কার্যধারা অবৈধ হইবে না এবং তৎসম্পর্কে কোনো প্রশ্ন উত্থাপন করা যাইবে না।



Share with :

Facebook Facebook